গাছ। এরা হল ফল, মসলা এবং দানাদার খাবারের উৎপাদনকারী। ছায়া প্রদানকারী। পাখি এবং কাঠবিড়ালি এর মত বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণীদের বাসস্থান। জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধ করছে এরা। আজকে আমরা একটু ভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করব।

আজকে আমরা TeamTrees.ORG এর ২০২০ সালের আগে ২০ মিলিয়ন গাছ লাগানোর একটি মিশন সম্পর্কে কথা বলব। আর এই মিশনের জন্য দান করা হবে এমন প্রত্যেক ১ ডলারের জন্য ১ টি গাছ লাগানো হবে।

এখন, আপনার মনে এমন প্রশ্ন জাগতেই পারে যে,

২০ মিলিয়ন গাছ লাগালে পৃথিবীর কি উপকার হবে??

চলুন জেনে নেই যে TeamTrees এ প্রত্যেকটি দান কত বড় একটি প্রভাব ফেলবে।

শৈবাল, মৌমাছি এবং আরো অনেক প্রজাতির প্রাণীদের কাছে গাছ হল বাড়ি। আর শুধুমাত্র একটি ওক গাছ প্রায় ৫০০ প্রাণীর জন্য বাসস্থান হয়ে উঠতে পারে। আর হ্যাঁ, একটি কথা মাথায় রাখা উচিত যে আমাদের এই পৃথিবী খুবই দ্রুত বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণী হারিয়ে ফেলছে। আর আমরা এখন একটি বিশাল প্রাণী বিলুপ্তির যুগের মধ্যে রয়েছি।

আর যদি গাছ না থাকে, তাহলে অনেক প্রাণী তাদের বাসস্থান হারিয়ে ফেলবে যার কারণে তাদের বিলুপ্ত হওয়ার সম্ভবনা আরো বেড়ে যাবে। অনেক প্রাণী গাছকে বাসস্থান হিসেবে ব্যবহার করে, খাদ্যের জন্য ব্যবহার করে এবং নিরাপত্তা হিসেবে ব্যবহার করে।

তাই একটি মাত্র গাছ লাগানোর অর্থ হল একসাথে অনেক প্রাণীর বাসস্থানের ব্যবস্থা করা, খাবারের ব্যবস্থা করা এবং একসাথে অনেক প্রাণীর একটি নার্সারি তৈরি করে ফেলা যার পরিণাম কোন কোন ক্ষেত্রে খারাপ হতে পারে।

তবে, ২০ ডলার দান করে যদি ২০ টি গাছ লাগাতে সাহায্য করতে পারেন, তবে তা প্রাণীদের জন্য একটি পুরো শহর হয়ে দাঁড়াবে। আর একে মিলিয়ন দ্বারা গুণ করলেই বুঝতে পারবেন যে এই পরিমাণ গাছ রোপণের কারণে প্রাণীদের একটি বিশাল বৈচিত্রপূর্ণ মহানগর তৈরি হবে।

অনেক গবেষণায় এটা প্রমাণিত হয়েছে যে এক গুচ্ছ গাছ অথবা একটি জঙ্গলে সময় কাটালে তা মানসিক সতেজতা তৈরি করতে পারে। এটি আপনার মেজাজকে ভাল করে দিতে পারে যেটি আপনার মনকে শান্তিতে ভরে দিতে পারে এবং আপনার মনের উপর থেকে চাপ এবং বিষণ্ণতা কমিয়ে দিতে পারে।

জাপানে জঙ্গলে সময় কাটানোর এই বিষয় নিয়ে একটি জাপানিজ শব্দ আছে যেটি হল ‘Shirik-Yoku’ যার ইংরেজি অর্থ হল ‘Forest Bathing’. আর হ্যাঁ, গাছ আপনার উপরে শুধুমাত্র মানসিক নয়, শারীরিক প্রভাবও রাখতে পারে।

গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে জঙ্গলের মনোরম পরিবেশে সময় কাটালে তা আপনার রক্তচাপ এবং আপনার মধ্যে থাকা মানসিক চাপ জনিত হরমোন যেমনঃঃ Cortisol এবং Adrenaline কমিয়ে আনতে পারে। তো, মূলকথা হল গাছ আপনাকে খুশি করে রাখে।

Deep Forest
Deep Forest

গবেষণা আরো প্রমাণ করেছে যে খুশি মানুষ অপরাধ কম করে। বিশেষ করে গুরুতর অপরাধ তারা খুবই কম করে থাকে। তাহলে, এটাই প্রমাণ করে যে এক গুচ্ছ গাছই আপনাকে খুশি রাখে।

তাহলে একবার ভেবেই দেখুন। ২০ মিলিয়ন গাছের মানে হল হাজার হাজার নতুন জঙ্গল যার অর্থ হল প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ এইসকল বনে এসে তাদের মনকে একদম পরিষ্কার করে নিয়ে যেতে পারবে। আর এটি মানুষের মনের মধ্যে সুখ বাড়িয়ে দিয়ে অপরাধ ও বিভিন্ন প্রকারের অপকর্মের পরিমাণ গণহারে কমিয়ে আনবে।

তখন আপনি প্রতিদিনই অপরাধের বিরুদ্ধে সরাসরি যুদ্ধ করতেন। আর এর একমাত্র কারণ হত সেই সকল গাছ যেগুলো আপনি লাগিয়েছিলেন।

উপকারিতা

গাছ সূর্যের আলো প্রতিরোধ করে ছায়া তৈরি করে যা পরিবেশের তাপমাত্রাকে কমিয়ে আনে। এ ছাড়া তারা তাদের পাতা দিয়ে তাপ প্রতিফলিত করেও পরিবেশকে ঠান্ডা রাখে। পরিবেশ আরও ঠাণ্ডা হয় যখন গাছ তার পাতা থেকে তরল পদার্থ পরিবেশে ছেড়ে দেয় যা পরিবেশকে ঠাণ্ডা রাখে এবং বৃষ্টি হতে সাহায্য করে।

গাছ একটি নির্দিষ্ট এলাকাকে অনেক ঠাণ্ডা করে দিতে পারে। আর আমরা শুধুমাত্র কয়েক ডিগ্রির কথা বলছি না। গাছে ভর্তি শহুরে এলাকাগুলো গ্রীষ্মকালে অন্যান্য গাছহীন একালা থেকে প্রায় ১১ ডিগ্রি ঠাণ্ডা থাকতে পারে।

এমন একটি দিনেক কথা ভাবুন যে দিনে আপনার এলাকার তাপমাত্রা অসহনীয় ৯০ ডিগ্রি ফারেনহাইট যেখানে আপনার প্রতিবেশী এলাকার পরিবেশের তাপমাত্রা আরামদায়ক ৭৯ ডিগ্রি ফারেনহাইট।

গাছপালা একটি আস্ত বিল্ডিং এর তাপমাত্রাও কমিয়ে আনতে পারে যেটি Air Conditioning বা AC এর ব্যবহার কমিয়ে আনবে এবং তা বিদ্যুৎ অপচয় প্রতিরোধে সহায়তা করবে।

গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে গাছের ছায়ার ফলে একটি এলাকা যে পরিমাণে ঠান্ডা হয় তা AC এর ব্যবহারে যে খরচ হয় সেই খরচকে ২০ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত কমিয়ে আনতে সক্ষম। ভেবেই দেখুন না, যদি একটি বাড়িতে AC এর জন্য মাসে ১০০ ডলার অতিরিক্ত খরচ হয়, তাহলে সেই বাড়ির চারিদিকে মাত্র ১০ টি গাছ লাগালেই এই খরচ ২০ থেকে ৩০ শতাংশ কমিয়ে আনা সম্ভব।

আর তার মানে ২০ মিলিয়ন গাছ লাগালে বিশ্বব্যপী প্রতি বছর ৬০ মিলিয়ন ডলার বাঁচানো সম্ভব। তাই, আপনার যদি এই কারণে টাকা দান করা সম্ভব নাও হয়, তবে একটু বিবেচনা করে আপনার বাড়ির চারিদিকে কিছু গাছ লাগিয়ে দিন। তাহলে আমার না হোক, আপনার একটু হলেও লাভ হবে।

গাছ শব্দ প্রতিরোধ করতে ২ দিক থেকে সহায়তা করে। প্রথমত তারা শব্দকে শোষণ করতে পারে কারণ মোটা ডালপালা উচ্চ তরঙ্গের শব্দ শোষণ করতে খুবই দক্ষ। আর দ্বিতীয়ত এটি শব্দ প্রতিফলিত করে। কারণ শব্দ যখন নমনীয় কোন কিছুতে ধাক্কা খায়, তখন তা বাধাপ্রাপ্ত হয়ে ফিরে যায়।

What would happen in we plant 20 Mill Trees
What would happen in we plant 20 Mill Trees

আবার, যখন শব্দ ডালপালার মত নমনীয় কোন কিছুতে ধাক্কা খায়, তখন সেই ডাল কেঁপে ওঠে যা শব্দকে অন্য কোন রূপের শক্তিতে পরিবর্তিত করে ফেলে। একটি মোটা গাছের সারি ১৫ db পর্যন্ত শব্দকে আটকে দিতে পারে। এটি একদম Ear Plug ব্যবহার করার মত। কিন্তু, গাছ থাকলে আপনি আপনার কানের মধ্যে অস্বস্তিকর ফোম না দিয়েও শান্তিতে ঘুমাতে পারবেন।

গাছের শিকর মাটিকে শক্তভাবে ধরে রাখে যার ফলে ভারি বৃষ্টিপাতের সময় মাটি ক্ষয়, বন্যা এবং মাটিধ্বস হওয়া থেকে বিরত রাখে এবং বড় বড় অবকাঠামোকে সুরক্ষিত রাখে।

গাছ পানি শোধন করতেও সাহায্য করে কারণ তাদের শিকর পানি থেকে দূষিত পদার্থ দূর করে দিয়ে আবার পানিকে মাটির মধ্যে ফিরিয়ে দেয়। আর এটি মাটির মধ্যে থাকা পানিকে রিচার্জ হতে সাহায্য করে যার ফলে নর্দমায় কম পানি গিয়ে তা মাটির মধ্যে ফিরে গিয়ে আবার বিশুদ্ধ হয়ে পুনরায় ব্যবহারযোগ্য হয়ে যাবে।

একটি পূর্ণবয়ষ্ক গাছ তার বৃদ্ধির সময়ে প্রায় ১১০০০ গ্যালন পানি শোষণ করে তাকে বায়ুমণ্ডলে বিশুদ্ধ অক্সিজেন হিসেবে ছেড়ে দিতে পারে। তার মানে হল যে, ২০ মিলিয়ন গাছ প্রায় ২২০ বিলিয়ন গ্যালন পানি শোধন করে দিতে পারবে। এটি ৩ লক্ষ অলিম্পিক সুইমিং পুলকে ভরে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট।

মানুষ অক্সিজেন গ্রহণ করে কার্বন-ডাই অক্সাইড বায়ুমণ্ডলে ছেড়ে দেয়। গাছ ঠিক তার বিপরীত কাজটি করে। তারা কার্বন-ডাই অক্সাইড গ্রহণ করে এবং তা ফটোসিনথেসিসের জন্য জমিয়ে রাখে যা ফটোসিনথেসিসের সময় অক্সিজেন তৈরি করে বায়ুমণ্ডলে ছেড়ে দেয়।

মানুষের দ্বারা তৈরি অতিরিক্ত কার্বন-ডাই অক্সাইড বায়ুমণ্ডলে কার্বনের পরিমাণ বাড়িয়ে গ্রিন-হাইজ এর প্রভাবকে বাড়িয়ে দেয় যা বৈষ্মিক উষ্ণায়নকে আরও শক্তিশালী করে তোলে। পৃথিবীতে যত বেশি গাছ থাকবে, তত বেশি পরিমাণে কার্বন-ডাই অক্সাইড গাছ গ্রহণ করবে এবং বায়ুমণ্ডল থেকে তত বেশি কার্বন-ডাই অক্সাইড নির্মূল হবে।

একটি গাছ কি পরিমাণে অক্সিজেন তৈরি করবে তা নির্ভর করে কয়েকটি বিষয়ের উপরে। এর মধ্যে রয়েছে গাছটির প্রজাতি, তার স্বাস্থ্যের অবস্থা এবং তার চারিপাশের পরিবেশের তাপমাত্রা। তবে, কিছু গবেষণা এটা বলছে যে একটি প্রাপ্তবয়স্ক গাছ বছরে প্রায় ৪৮ পাউন্ড বা ২১.৭৭ কেজি কার্বন শোষণ করতে পারে এবং বায়ুমণ্ডলে ২ জন মানুষের শ্বাস নেওয়ার মত অক্সিজেন ছেড়ে দিতে পারে।

একটি গাড়ী ২৬০০০ মাইল চালালে যতটুকু কার্বন নির্গত হয়, সেই পরিমাণ কার্বন এক একর গাছ প্রতি বছর শোষণ করে। আর যদি আমরা এটা ধরে নেই যে এক একর জমিতে প্রায় ৩০০ গাছ থাকে, তাহলে ২০ মিলিয়ন নতুন গাছ সেই পরিমাণ কার্বন-ডাই অক্সাইড শোষণ করতে পারবে যতটুকু কার্বন একটি গাড়ি ১.৭ বিলিয়ন মাইল চালানোর পর তৈরী হয়।

Forest in Icy Area
Forest in Icy Area

আর হ্যাঁ, গাছ শুধুমাত্র কার্বন-ডাই অক্সাইড-ই নয়, বরং তারা অন্যান্য ক্ষতিকারক দূষক যেমন সালফার ডাই অক্সাইড বা কার্বন-মনো অক্সাইড এর মত ক্ষতিকারক পদার্থ শোষণ করে।

ঘন গাছের চাদর একটি পরিশোধকের মত কাজ করে যা ধোয়া, ধুলাবালি ইত্যাদির কণা গুলোকে আটকে দেয়। আর একটি মাত্র গাছ বছরে ২.২০ পাউন্ড এরকম কণা পরিশোধন করে। যার অর্থ হল ২০ মিলিয়ন গাছ বছরে ৪৪ মিলিয়ন পাউন্ড ক্ষতিকারক কণা আটকে দেয়।

এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, একটি একালার গাছ ভর্তি অংশে সে এলাকার খালি বা বায়ু পূর্ণ অংশের থেকে ৭৫ শতাংশ কম ধূলা থাকতে পারে। আর হ্যাঁ, এটি একটি সত্য কথা যে আমরা কেউই, কেউই ধূলা মিশ্রিত বাতাস পছন্দ করি না।

তাই নিজের এবং আপনার প্রতিবেশীর জন্য কয়েকটি গাছ লাগান অথবা TeamTrees.ORG এ কিছু টাকা দান করুন যাতে তারা আপনার জন্য এবং আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি পরিষ্কার পরিবেশ রেখে যেতে পারি।

এই বছর অর্থাৎ ২০১৯ সালের জুলাই মাসের একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, যদি আমরা পর্যাপ্ত পরিমাণের গাছ রোপণ করতে পারি, তাহলে আমরা হয়ত জলবায়ু পরিবর্তনকে খারাপ দিকে যাওয়া থেকে বন্ধ করে দিতে পারব অথবা জলবায়ু পরিবর্তনে একটি বিশাল পরিবর্তন আনতে পারব।

এ কারণের সারা বিশ্বের অনেক মানুষ TeamTrees.ORG এর ২০২০ সালের মধ্যে ২০ মিলিয়ন গাছ লাগানোর মিশনে সহায়তা করতে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হওয়া উচিত। আর আমরাও এর একটি অংশতে হয়েছি এবং আপনারও হওয়া উচিত। কারণ ১ ডলারের অর্থ হল একটি নতুন গাছকে পৃথিবীর বুকে জন্ম দেওয়ানো।

তো, কিসের জন্য অপেক্ষা করছেন?? TeamTrees.ORG এ চলে যান এবং এই পৃথিবীকে নতুন একটি রূপ দেওয়ার মিশনে নিজের যায়গা তৈরি করে নিন। আর যদি আপনি তা না করতে পারেন, তাহলে এই আর্টিকেলটি শেয়ার করুন যাতে আপনার জন্য অন্য কেউ এই মিশনের একটি অংশ হয়ে উঠতে পারে।