ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - ব্লগার ফ্রেন্ডস বিডির পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২ নিয়ে আলোচনা করব। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২ সম্পর্কে আরো জানতে গুগলে সার্চ করতে পারেন অথবা আমাদের ওয়েব সাইটে অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন। তো চলুন আমাদের আজকের মূল বিষয়বস্তুগুলো এক নজরে পেজ সূচিপত্রতে দেখে নেয়া যাকঃ

ফেসবুকে প্রতিদিন নতুন নতুন ব্যবহারকারী যুক্ত হচ্ছে। অনেকের ফেসবুক আইডি আছে যেগুলো অন্য কেউ খুলেছে। কে জানে, হয়তো আপনি বা আপনার পরিবারের কোনো সদস্য সম্প্রতি ফেসবুকে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন! কিন্তু সবাই জানে না কিভাবে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতে হয় বা কিভাবে ফেসবুক আইডি খুলতে হয়। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলা কিন্তু অনেক সহজ।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২

আসুন জেনে নিই ফেসবুকের প্রধান বৈশিষ্ট্য, ফেসবুকের সুবিধা-অসুবিধা, কীভাবে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতে হয় বা ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম ইত্যাদি।

ফেসবুক কি?

ফেসবুক বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। ফেসবুক ব্যাপকভাবে পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে অনলাইনে সংযোগ করতে এবং মুহূর্ত শেয়ার করতে ব্যবহৃত হয়। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী 2.85 বিলিয়ন ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছে। এর মধ্যে 1.78 বিলিয়ন ব্যবহারকারী দিনে অন্তত একবার ফেসবুকে লগ ইন করেন।

মার্ক জুকারবার্গ যখন 2004 সালে ফেসবুক তৈরি করেছিলেন, তখন শুধুমাত্র হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ওয়েবসাইটটি ব্যবহার করতে পারতেন। 2006 সাল থেকে, 13 বছর বা তার বেশি বয়সের যে কেউ একটি ইমেল আইডি দিয়ে ফেসবুকে যোগদানের বৈশিষ্ট্য যুক্ত করা হয়েছে। বর্তমানে, ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ইমেল বা ফোন নম্বর ব্যবহার করে খোলা যায়।

ফেসবুক আইডির প্রধান ফিচারসমূহ

যদিও ফেসবুক একটি সামাজিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম, এটি এখন বিভিন্ন ব্যবসা এবং প্রতিষ্ঠানের জন্যও একটি প্রধান প্রচারমূলক চ্যানেল। ফেসবুক প্রতিনিয়ত নতুন নতুন ফিচার যোগ করছে। যাইহোক, ফেসবুকের কিছু মূল ফিচার রয়েছে যা সাইটটির চারপাশে ডিজাইন করা হয়েছে। ফেসবুকের প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলির মধ্যে রয়েছেঃ

ফ্রেন্ডঃ

ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়ে অন্য একজন ফেসবুক ব্যবহারকারীকে বন্ধু হিসেবে এড করা যাবে। বন্ধু হিসেবে এড হওয়ার পর ব্যবহারকারীরা একে অপরের পোস্ট করা আপডেট সরাসরি নিউজ ফিডে দেখতে পারবেন।

নিউজ ফিডঃ 

একজন ব্যবহারকারীর অনুসরণ করা পৃষ্ঠা, প্রোফাইল এবং গ্রুপ পোস্ট সবই নিউজ ফিডে প্রদর্শিত হয়। এটি হল মূল পৃষ্ঠা বা হোমপেজ যা আপনি ফেসবুকে লগ ইন করার সময় দেখতে পান। একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী তার বেশিরভাগ সময় নিউজ ফিডে ব্যয় করেন।

স্টোরিঃ

স্টোরি হল ব্যবহারকারীদের দ্বারা পোস্ট করা ছবি বা ছোট ভিডিও যা ২৪ ঘন্টা পরে অদৃশ্য হয়ে যায়।

টাইমলাইনঃ

একটি টাইমলাইন হল একটি ব্যবহারকারী বা পৃষ্ঠা দ্বারা করা সমস্ত পোস্টের একটি সংরক্ষণাগার৷ মূলত সব পোস্ট টাইমলাইনে তারিখ অনুসারে সাজানো থাকে। প্রোফাইল পেজগুলোই টাইমলাইন। 

গ্রুপঃ

একটি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে ব্যবহারকারীদের ফোরামকে গ্রুপ বলা হয়। ফেসবুক গ্রুপে লিংক, মিডিয়াসহ অনেক ধরনের পোস্ট করা যায়।

লাইক বা রিয়েকশনঃ

একজন ব্যবহারকারী পোস্টে লাইক বা রিয়েকশন দিয়ে তার মতামত বা অনুভূতি প্রকাশ করতে পারেন।

মেসেজ বা ইনবক্সঃ

ফেসবুকের মাধ্যমে করা ব্যক্তিগত বার্তা বা গ্রুপ চ্যাট ইনবক্সে সংরক্ষণ করা হয়।

ফেসবুক এর সুবিধা

ভাল বা খারাপ যাইহোক, ফেসবুক অনেক মানুষের জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে। এর কারণ ফেসবুকের সব ফিচার এবং এর মাধ্যমে মানুষের জন্য তৈরি করা বিভিন্ন সুবিধা। ফেসবুকের উল্লেখযোগ্য সুবিধাগুলো হলঃ

১। বন্ধু এবং পরিবারের সাথে সহজে যোগাযোগ করা এবং সম্পর্ক বজায় রাখা সম্ভব হচ্ছে

২। আপনি পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে মজার ঘটনা বা স্মৃতি শেয়ার করতে পারেন

৩। পৃথিবীর যে কোন প্রান্তে যা ঘটছে তার খবর ঘরে বসেই পাওয়া যায়

৪। গ্রুপ বা পেজের মাধ্যমে একই মানসিকতা এবং আদর্শের লোকেদের সাথে সংযোগ স্থাপন করা

৫। প্রিয় সেলিব্রিটি বা তারকাদের কাছ থেকে আপডেট পাওয়া

৬। অনলাইনে ব্র্যান্ড ও ব্র্যান্ডের জন্য ক্রেতা তৈরি করা খুব সহজ হয়ে উঠছে

ফেসবুক এর অসুবিধা

সুবিধার পাশাপাশি ফেসবুকের অসুবিধাও রয়েছে। ফেসবুকে ব্যবহারকারীর ডেটার নিরাপত্তা না থাকায় অতীতে অনেক ব্যবহারকারী এই সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট ডিলিট করেছেন। ফেসবুকের কিছু উল্লেখযোগ্য অসুবিধা হলঃ

১। ফেসবুকে অতিরিক্ত ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করা ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যার সম্মুখীন করে

২। ফেক প্রোফাইলের ভিড়ে ফেসবুকে আসল অ্যাকাউন্ট বা পেজ চেনা প্রায়ই ঝামেলার কাজ

৩। ফেসবুকের অতিরিক্ত ব্যবহার অনেক মূল্যবান সময় নষ্ট করে

৪। ফেসবুকের মাধ্যমে ভুল লিঙ্ক বা সফ্টওয়্যার ডাউনলোডে ভাইরাস এবং ম্যালওয়্যার ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে

৫। এই মাধ্যমে আসল তথ্যের চেয়ে জাল তথ্য দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে

ফেসবুক একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে

একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতে যা যা লাগেঃ

১। ইন্টারনেট সংযোগ

২। মোবাইল বা কম্পিউটার

৩। ইমেল অ্যাকাউন্ট বা মোবাইল নম্বর

মনে রাখবেন যে, একটি নতুন ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতে ব্যবহারকারীর বয়স কমপক্ষে ১৩ বছর হতে হবে।

ফেসবুক অ্যাপস ডাউনলোড

ফেসবুক ব্যবহারের জন্য ফেসবুক এর পক্ষ থেকে থেকে বেশ কিছু অ্যাপস রয়েছে। ফেসবুকে চ্যাট করার জন্য রয়েছে মেসেঞ্জার অ্যাপ। লো-এন্ড ডিভাইসের জন্য ফেসবুক লাইটও রয়েছে, যাতে ফেসবুকের সমস্ত বৈশিষ্ট্য একটি ছোট অ্যাপে ব্যবহার করা যায়। এছাড়াও মেসেঞ্জার লাইট আছে।

১। ফেসবুক অ্যাপ ডাউনলোড করুনঃ Android \ iOS

২। ফেসবুক লাইট ডাউনলোড করুনঃ Android \ iOS

৩।মেসেঞ্জার অ্যাপ ডাউনলোড করুনঃ Android \ iOS

৪। মেসেঞ্জার লাইট অ্যাপ ডাউনলোড করুনঃ Android

উল্লিখিত ফেসবুক অ্যাপগুলি আইফোন এবং অ্যান্ড্রয়েড উভয় প্ল্যাটফর্মের জন্য উপলব্ধ।কিন্তু আইফোন এর জন্য কোনো মেসেঞ্জার লাইট অ্যাপ নেই।

কিভাবে মোবাইলে ফেসবুক আইডি খুলতে হয়

ফেসবুক অ্যাপ বা ব্রাউজার ব্যবহার করে মোবাইল অ্যাপ দিয়ে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলা যায়। মোবাইলে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতেঃ

১। ফেসবুক অ্যাপে সাইন ইন করুন বা একটি ব্রাউজার থেকে Facebook.com এ সাইন ইন করুন৷

২। Create New Account বাটনে ক্লিক করুন


৩। তারপর Next চাপুন

৪। তারপর First Name বক্সে আপনার নামের প্রথম অংশ এবং Last Name বক্সে আপনার নামের শেষ অংশ লিখুন


৫। তারপর জন্ম তারিখ নির্বাচন করুন


৬। লিঙ্গ নির্বাচন করুন


৭। যাচাইকরণের জন্য আপনার মোবাইল নাম্বার বা ইমেল ঠিকানা দিন


৮। তারপর ফেসবুক অ্যাকাউন্টের জন্য একটি পাসওয়ার্ড লিখুন। ছোট হাতের অক্ষর, বড় হাতের অক্ষর, চিহ্ন এবং সংখ্যার সংমিশ্রণ পাসওয়ার্ডকে শক্তিশালী করবে এবং হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা কম। পাসওয়ার্ডটি ঠিকভাবে মনে রাখবেন, অন্যথায় আপনি পরে লগইন করতে পারবেন না। পাসওয়ার্ড লিখুন এবং Next এ ক্লিক করুন


৯। এর পরে, যদি Log in with one tap অপশন টি শো করে, তাহলে আপনার পছন্দটি নির্বাচন করুন, যার মাধ্যমে আপনি পরে এক ক্লিকে ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক ক্লিকে সাইন ইন করতে পারেন।

১০। তারপর আপনার দেওয়া ইমেল বা ফোন নম্বরে একটি মেইল ​​বা বার্তা পাঠানো হবে

১১। মেইলে ​​বা মেসেজে আসা প্রাপ্ত কোডটি ফেসবুকে দিয়ে Confirm চাপুন


১২। তারপর আপনাকে ফেসবুক থেকে আপনার আশেপাশের কিছু লোককে বন্ধু হিসাবে যুক্ত করতে বলা হবে

১৩। প্রদর্শিত কাউকে যোগ করতে না চাইলে, আপনি Skip চাপতে পারেন

১৪। তারপর আপনাকে একটি প্রোফাইল পিকচার আপলোড করতে বলা হবে, যা আপনি অবিলম্বে বা পরেও করতে পারেন৷


উল্লিখিত পদ্ধতি সঠিকভাবে অনুসরণ করলে মোবাইল থেকে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট তৈরি হয়ে যাবে।

কিভাবে কম্পিউটারে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতে হয়

একটি কম্পিউটার থেকে একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম একটি মোবাইল ফোন থেকে একটি ফেসবুক আইডি খোলার নিয়মের মতোই। কম্পিউটার থেকে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতেঃ

১। একটি ব্রাউজার থেকে Facebook.com অ্যাক্সেস করুন

২। Create New Account লেখায় ক্লিক করুন


৩। যে নাম দিয়ে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খুলতে চান তা লিখুন


৪। ফোন নাম্বার বা ইমেল ঠিকানা লিখুন


৫। নতুন পাসওয়ার্ড লিখুন


৬। জন্ম তারিখ নির্বাচন করুন


৭। লিঙ্গ নির্বাচন করুন


৮। Sign Up এ ক্লিক করুন


৯। এর পরে ইমেলে বা মেসেজে পাওয়া কোড আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে প্রদান করলে অ্যাকাউন্ট খোলা হয়ে যাবে।


ফেসবুকের বিকল্প

যদি ফেসবুক আপনার পছন্দ না হয়, তবে হোয়াটসঅ্যাপ বা টেলিগ্রামের মত বিকল্প অ্যাপ মেসেজিং এবং কল করার জন্য ব্যবহার করতে পারেন। ফেসবুকের সেরা বিকল্প মেসেজিং এবং কলিং পরিষেবাগুলির মধ্যে কয়েকটি হল – Snapchat, Telegram, Viber ইত্যাদি৷ 

শেষ কথা

আপনি কি ফেইসবুক ব্যবহার করেন কি না? সেটা কমেন্ট সেকশনে জানান। এছাড়াও আপনার যদি ফেসবুক সম্পর্কিত কোন প্রশ্ন থাকে, তাহলে আপনি আমাদের কমেন্ট সেকশনে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। 



আপনার আসলেই ব্লগার ফ্রেন্ডস বিডির একজন মূল্যবান পাঠক। ফেসবুক অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২ এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
কোন মন্তব্য নেই
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার মন্তব্য জানান

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন - অন্যথায় আপনার মন্তব্য গ্রহণ করা হবে না ।

comment url