ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করা যায়?

আচ্ছালামু আলাইকুম প্রিয় দর্শক - ব্লগার ফ্রেন্ডস বিডির পক্ষ থেকে আপনাকে স্বাগতম। আজকে আমি আপনাদের মাঝে ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করা যায়? নিয়ে আলোচনা করব। ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করা যায়? সম্পর্কে আরো জানতে গুগলে সার্চ করতে পারেন অথবা আমাদের ওয়েব সাইটে অন্যান্য পোস্টগুলো পড়তে পারেন। তো চলুন আমাদের আজকের মূল বিষয়বস্তুগুলো এক নজরে পেজ সূচিপত্রতে দেখে নেয়া যাকঃ

ডিজিটাল মার্কেটিং আজকাল একটি খুব পরিচিত শব্দ, যা আপনি হয়তো সোশ্যাল মিডিয়া বা ব্লগে শুনে থাকবেন। এই পোস্টে, আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং কি, এর সুবিধা এবং কিভাবে ডিজিটাল মার্কেটিং করে আয় করা যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি ডিজিটাল মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করা যায়

ডিজিটাল মার্কেটিং কি?

ডিজিটাল মার্কেটিং বা অনলাইন মার্কেটিং হল ইন্টারনেট বা যেকোনো ধরনের ডিজিটাল যোগাযোগের মাধ্যম ব্যবহার করে কোনো প্রতিষ্ঠান বা ব্র্যান্ডের প্রচার। ডিজিটাল মার্কেটিং এর মধ্যে রয়েছে ইমেল, সোশ্যাল মিডিয়া, ওয়েব ভিত্তিক বিজ্ঞাপনের পাশাপাশি এসএমএস, অডিও মার্কেটিং চ্যানেল ইত্যাদিও অন্তর্ভুক্ত। অর্থাৎ যে মার্কেটিং ক্যাম্পেইন ডিজিটাল কমিউনিকেশনের অন্তর্ভুক্ত তাকে ডিজিটাল মার্কেটিং বলে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সুবিধা

ডিজিটাল মার্কেটিং অনেক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে কারণ এটি সহজেই একটি বড় অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছাতে পারে। এছাড়াও ডিজিটাল মার্কেটিং এর আরো অনেক সুবিধা রয়েছে, আসুন জেনে নেই ডিজিটাল মার্কেটিং এর উল্লেখযোগ্য সুবিধাগুলো সম্পর্কে।

বিশ্বব্যাপী রিচ

যখন একটি বিজ্ঞাপন বিশ্বব্যাপী টার্গেট করে অনলাইনে পোস্ট করা হয়, তখন সারা বিশ্বের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা বিজ্ঞাপনটি দেখতে পান। বিশ্বব্যাপী একটি ব্যবসা প্রসারিত করার জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

নির্ভরযোগ্য ফলাফল

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হল যে এর থেকে প্রাপ্ত ফলাফলগুলি পরবর্তী পদক্ষেপগুলি নির্ধারণ করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। এই ফলাফলগুলিকে ন -ডিজিটালি পরিমাপ করে বুঝেশুনে অগ্রসর হওয়ার কোন উপায় নেই। ঐতিহ্যগত মার্কেটিং এর ফলাফল মূলত অনুমানের উপর ভিত্তি করে।

ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করে গ্রাহকের পছন্দ, আচরণ, কার্যকলাপ ইত্যাদি সম্পর্কে খুব সহজেই জানা যায়। আবার, পরবর্তী ক্যাম্পেইনে এই ডেটা ব্যবহার করে কনভার্সন রেট বাড়ানোর সুযোগ রয়েছে। অর্থাৎ, ডিজিটাল মার্কেটিং থেকে প্রাপ্ত ডেটা বেশ নির্ভরযোগ্য এবং কাজে লাগানো যেতে পারে। 

খরচ কম

ডিজিটাল মার্কেটিং খুব কম খরচে ব্যাপক দর্শকদের কাছে পৌঁছানো যায়। ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করে, টিভি বা কাগজের বিজ্ঞাপনে যে পরিমাণ অর্থ ব্যয় করা হয় তার চেয়েও কম সময়ে একই বিজ্ঞাপন বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া যেতে পারে। তবে সময়ের সাথে সাথে চাহিদা বাড়ার সাথে সাথে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের খরচ ও বেড়ে যাচ্ছে।

কাস্টমারের সাথে যোগাযোগ

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে অডিয়েন্সের সাথে সরাসরি যোগাযোগের সুযোগ রয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে, আপনি দর্শকদের পছন্দ, মন্তব্য, শেয়ার ইত্যাদি বিবেচনা করে শ্রোতারা ব্যক্তিগতভাবে কীভাবে আপনার পণ্য গ্রহণ করেছেন তা জানতে পারেন। এইভাবে গ্রাহকের সংযুক্ততা আপনার ব্র্যান্ডের ইমেজে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

পারসোনালাইজেশন

ডিজিটাল মার্কেটিং এর সবচেয়ে উত্তম জিনিসটি হতে হবে পারসোনালাইজেশন। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে টার্গেট অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছানো যায় তুলনামূলকভাবে সহজে। অর্থাৎ ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে আপনার প্রোডাক্টের পোটেনশিয়াল কাস্টমারের কাছে সহজে পৌঁছাতে পারে। আপনার সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ ডেটা সহ, কম খরচে লক্ষ্যযুক্ত দর্শকদের কাছে পৌঁছানোর জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং ব্যবহার করা যেতে পারে।

বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং পদ্ধতি ও সেগুলো থেকে ইনকাম

ডিজিটাল মার্কেটিং অনেক ধরনের হতে পারে। এখন আমরা ডিজিটাল মার্কেটিং এর কিছু প্রধান ধরন সম্পর্কে জানবো যেখান থেকে আয় করা সম্ভব।

কনটেন্ট মার্কেটিং

কন্টেন্ট মার্কেটিং এবং এসইও, এই দুটি ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত। মূলত, লক্ষ্য শ্রোতাদের প্রাসঙ্গিক এবং মূল্যবান সংস্থান সরবরাহ করে মার্কেটিংকে ডিজিটাল মার্কেটিং এর ভাষায় কন্টেন্ট মার্কেটিং বলা হয়। যাইহোক, সামগ্রী মার্কেটিং সরাসরি বিজ্ঞাপনের সাথে কাজ করে না। বরং কনটেন্ট মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে বিভিন্ন তথ্য প্রদানের মাধ্যমে গ্রাহককে তার পণ্যের প্রতি আকৃষ্ট করার চেষ্টা করা হয়।

বিষয়বস্তু মার্কেটিং এর মূল উদ্দেশ্য হল টার্গেট দর্শকদের প্রয়োজনীয় সংস্থান সরবরাহ করা, যা সম্ভাব্য গ্রাহক তৈরি করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। ব্লগ, ইউটিউব ভিডিও ইত্যাদি বিষয়বস্তু বিপণনের অংশ। ফ্রিল্যান্সাররা অনলাইন আয়ের জন্য কনটেন্ট মার্কেটিং করতে পারেন।

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন

সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন বা এসইও হল একটি মার্কেটিং সরঞ্জাম যা সঠিকভাবে সেট আপ করার পরে নিজেই ফলাফল সরবরাহ করে। মূলত, সার্চ ইঞ্জিনের জন্য ওয়েবসাইটের বিষয়বস্তু অপ্টিমাইজ করাকে এসইও বলা হয়। একটি ব্র্যান্ডের ইন্টারনেট এক্সপোজার ব্র্যান্ডের এসইও উপস্থিতির উপর নির্ভর করে। SEO একটি ব্র্যান্ডের ওয়েবসাইটে সামগ্রীর গুণমান, ব্যবহারকারীর ব্যস্ততা, মোবাইল-বন্ধুত্ব, লিঙ্কিং ইত্যাদির উপর নির্ভর করে।

এসইও হল গুগলের মতো ইন্টারনেটের সেরা সার্চ ইঞ্জিনের প্রথম পাতায় অবস্থান করার মাধ্যম। এবং কোম্পানিগুলো এই আশ্চর্যজনক টুলের কার্যকর ব্যবহার নিশ্চিত করতে এসইও বিশেষজ্ঞদের নিয়োগ করছে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ডিজিটাল মার্কেটিং আজকাল খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এক্ষেত্রে সুবিধা হল গ্রাহকদের এনগেজমেন্ট ও ডিসকাশন কাজে লাগিয়ে মার্কেটিং করা সম্ভব। যেহেতু সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর সাথে সরাসরি শ্রোতাদের সম্পৃক্ততা জড়িত, তাই এটি বর্তমানে অন্যান্য ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমের চেয়ে বেশি কার্যকর বলে বিবেচিত হয়।

যারা সোশ্যাল মিডিয়া সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান রাখেন তাদের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং হতে পারে আয়ের একটি বড় উৎস। ধরুন আপনি যদি একজন ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রাম বিজ্ঞাপন বিশেষজ্ঞ হন, সেক্ষেত্রে আপনি একাধিক চ্যানেলের মাধ্যমে বিভিন্ন সংস্থাকে এই পরিষেবাগুলি সরবরাহ করে প্রচুর অর্থ উপার্জন করতে পারেন। এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্টের মাধ্যমে আয় করা সম্ভব, ফ্রিল্যান্সিং এর চেয়ে সহজ আয়ের উৎস আর নেই।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অন্যতম সেরা মাধ্যম হল অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং। এই মাধ্যমটির ভালো দিক হল ব্র্যান্ড এবং প্রোমোটার উভয়ই এর থেকে উপকৃত হয়। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং মূলত একজন ব্যক্তিকে নির্দিষ্ট পরিমাণ কমিশনের বিনিময়ে প্রমোশনের কাজ দেওয়া। বর্তমানে বেশিরভাগ ব্র্যান্ডই অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং নিয়ে কাজ করছে।

যে কেউ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং থেকে আয় করতে পারে। এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য ধারাবাহিক কাজে করার প্রয়োজন হয় না, যা একটি ভাল বিষয়। আরো বিস্তারিত জানতে আপনি এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে আয় সম্পর্কে বাংলাপ্রযুক্তির পোস্টগুলো দেখতে পারেন।

ইমেইল মার্কেটিং

ডিজিটাল মার্কেটিং এর একটি প্রাচীন মাধ্যম হল ইমেইল মার্কেটিং। মূলত ইমেইলের মাধ্যমে প্রচারমূলক বার্তা পাঠানোকে ইমেইল মার্কেটিং বলে। ইমেইল মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে প্রথম ধাপ হল সম্ভাব্য দর্শকদের ইমেইল সংগ্রহ করা। তারপর উল্লিখিত ইমেল ঠিকানা ব্যবহার করে প্রচার চালানো হয়। মার্কেটিং অটোমেশনের মতো অন্যান্য সরঞ্জামগুলিও ইমেল মার্কেটিংকে সহজ করতে ব্যবহৃত হয়।

আজকাল ডিজিটাল মার্কেটিং যেকোন ব্যবসার মার্কেটিং এর মূল ফোকাস হওয়া উচিত। গ্রাহকের সাথে সরাসরি যোগাযোগ স্থাপন করে হাতে থাকা ডেটা ব্যবহার করে মার্কেটিং এর এই অসাধারণ পদ্ধতি আগে কখনো ছিল না। তাই সকল ব্যবসার উচিত এই ডিজিটাল মার্কেটিংকে গ্রহণ করা। আর যারা উল্লেখিত ডিজিটাল মার্কেটিং দক্ষতায় দক্ষতা রাখেন, তাদের এই মাধ্যমগুলো থেকে আয় রোজগারে নামতে হবে।

পে-পার-ক্লিক মার্কেটিং

পে-পার-ক্লিক বা PPC একটি প্ল্যাটফর্মে বিজ্ঞাপন পোস্ট করছে এবং প্রতিটি ক্লিকের জন্য অর্থ প্রদান করছে। এই ধরনের ডিজিটাল মার্কেটিং ব্র্যান্ডের কাছে বেশ আকর্ষণীয় যদিও মার্কেটিং এর এই ক্ষেত্রটি একটু জটিল। প্রতিটি পিপিসি ক্যাম্পেইন থেকে টার্গেট অডিয়েন্স পাওয়ার পাশাপাশি রয়েছে উচ্চ কনভার্সন রেট, যা ব্র্যান্ডের জন্য খুবই লাভজনক। আপনার যদি পিপিসি মার্কেটিং সম্পর্কে যথেষ্ট জ্ঞান থাকে তবে আপনি বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্মে পরিষেবা প্রদান করে উপার্জন করতে পারেন।

মার্কেটিং অটোমেশন

মার্কেটিং অটোমেশন হল ডিজিটাল মার্কেটিং প্রচারণার কার্যকারিতা বাড়াতে এবং দর্শকদের সাথে স্বয়ংক্রিয় যোগাযোগের জন্য সফটওয়্যারের ব্যবহার। ভোক্তা সম্পর্কে পর্যাপ্ত তথ্য সংগ্রহ করে, ডিজিটাল মার্কেটিং এর মাধ্যমে টার্গেট অডিয়েন্সের জন্য মার্কেটিং ক্যাম্পেইন চালানো হয়। শ্রোতাদের কাছে কাস্টম বার্তা পাঠানো এবং মার্কেটিং অটোমেশনের মতো দুর্দান্ত সরঞ্জামগুলিও অন্তর্ভুক্ত৷ আপনি মার্কেটিং অটোমেশন শিখতে পারেন এবং বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সিং প্ল্যাটফর্মে কাজ করতে পারেন।

শেষ কথা

বর্তমানে অনলাইনে ডিজিটাল মার্কেটিং এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। এই চাহিদাকে কেউ পেশা হিসেবে নিলে তাকে কখনোই আর্থিক সংকটে পড়তে হবে না। এভাবে অনলাইনে ডিজিটাল মার্কেটিং করে আপনি আপনার অর্থনৈতিক ও পেশাগত জীবনকে উন্নত করতে পারেন। 





আপনার আসলেই ব্লগার ফ্রেন্ডস বিডির একজন মূল্যবান পাঠক। ডিজিটাল মার্কেটিং কি? ডিজিটাল মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করা যায়? এর আর্টিকেলটি সম্পন্ন পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ ধন্যবাদ। এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না।

পরবর্তী পোস্ট পূর্ববর্তী পোস্ট
কোন মন্তব্য নেই
এই পোস্ট সম্পর্কে আপনার মন্তব্য জানান

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন - অন্যথায় আপনার মন্তব্য গ্রহণ করা হবে না ।

comment url